উদ্দেশ্য ও কার্যাবলী

 

সুশাসনরে অন্যতম পূর্বশর্ত হচ্ছে সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোকে সেবাদানে ও গতিশীল করা । দেশের উন্নয়ন কার্মকান্ডকে ত্বরাণ্বই ও গতিশীল করার জন্য মন্ত্রণালয়/মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ দপ্তর/ পরিদপ্তর/ অধিদপ্তরগুলিকে অধিকতর আর্থিক ক্ষমতা প্রদানের প্রতি গুরুত্ব আরেপ করে। এবং ১৯৮৫ সালে মন্ত্রণালয় ভিত্তিক হিসাব বিভাগীয় করণের সিদ্ধান্ত সরকার কর্তৃক গৃহীত হয়। তদানুযায়ী তৎকালীন মহা হিসাবরক্ষক (বেসামরিক), মহা হিসাবরক্ষক (পূর্ত), মহা হিসাবরক্ষক (ডাক, তার ও দূরালাপনী) এবং অতিরিক্ত মহা হিসাবরক্ষক, পররাষ্ট্র বিষয়ক এর অফিস সমূহকে পূর্নগঠন করে । প্রধান হিসাবরক্ষণ অফিস সৃষ্ঠি করা হয়। প্রজাতন্ত্রের হিসাব কেন্দ্রীয়ভাবে প্রস্তুত, সংরক্ষণ এবং সরকারের নিকট উপস্থাপন করা হিসাব মহা নিয়ন্ত্রকের দায়িত্ব। এ দায়িত্ব পালনের লক্ষ্যে প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা অফিসারগণ তাঁদের মন্ত্রণালয়ের ও অধীনস্থ দপ্তর/পরিদপ্তর/অধিদপ্তরসমূহের হিসাব একত্রিত এবং সংকলণ করে নির্ধারিত সময়সূচী ও চাহিদা মোতাবেক হিসাব মহা নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়ে দাখিল করাই সিএও কার্যালয়ের প্রধান দায়িত্ব। এবং এ ছাড়া ও সিএও অফিসসমূহ তাঁর নিরীক্ষা আওতাধীন মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন দপ্তর/অধিদপ্তর/পরিদপ্তর এর বাজেট বরাদ্দ থাকা সাপেক্ষে বিল পাশ, কর্মকর্তা/কর্মচারীগণের বেতন বিল, জিপিএফ, পেনশন (ইএফটি) ও প্রকল্পের অনুকূলে থোক টাকা পরিশোধ করা হয়। এ ছাড়া ও ডিসিএ, ডিএও, ও ইউএও অফিসে অর্থরিটি পত্র পূষ্ঠাংকণ পূর্বক প্রেরণ করা হয়।